13 March 2015

OUT OF BOUND যাতায়াত নিষিদ্ধ

OUT OF BOUND 

যাতায়াত নিষিদ্ধ 
এপিসোড -৭

পাচ বছর বয়েসের সবচে কনিষ্ঠ ভাই, যুবতী বোন , মা - মধ্যম ভাই আর  একমাত্র ভরসা ভাইজান - পথ তো আর ফুরায় না।  রেল লাইন পার হয়ে আতঙ্ক গ্রস্থ সিএনবি সড়ক।  কুমিল্লা - বি, বাড়িয়া সড়ক পাড় হওয়া  যেন এক ধরনের পুল সেরাথ পার হওয়ার মত এক বিশাল বিপদ্সমৃদ্ধ কাজ। 

হঠাথ একটা  বাজার পেলাম - গ্রামটার নাম আজও  মনে আছে - ''ছতুরা'' - মা  সবার জন্য এক জগ  কাচা দুধ কিনলো আর শক্ত পুরানো পাউরুটি - সেই দিনের ওই ছিল খাবার। 

সন্ধা প্রায় ; নদীর পার দিয়ে আবার হাটা শুরু- অপূর্ব সেই গোধুলি সুরজো টা  অস্ত যাচ্ছে আস্তে আস্তে ;  ও যেন কেমন ক্লান্ত ; ভাইজান বলল আর কয়েক মাইল।  পা ভারী হয়ে আসছে - মাথায় একটা সুটকেস - মা কয়েক মাস আগে ঢাকার নিয়ন বাতি তে প্রজ্জলিত বায়তুল মোকাররম  থেকে শাহীন কে  সাথে নিয়ে কিনেছিল- ওজন মনে হচ্ছিল কয়েক মন ; ঘাড় নড়ানো দায়। 

ওদিকে দূর আখাউড়া - উজানিশাহ রোডের আর রেল লাইন বরাবর বিশাল কামানের  আওয়াজ ; শরীর কেমন যেন শিহরিয়ে শিহরিয়ে উঠে ; পথিমধ্যে অনেক আরো  পরিবার - রওনা হয়েছে অগ্স্থ যাত্রায় ; মা হঠাত তার স্বভাব সুলভ ভাবে জোরে জোরে আবৃতি করলো- '' এ তুফান ভারী , দিতে হবে পারি - কান্ডারী হুশিয়ার ''.

গ্রাম বাংলা - জীবনে মাত্র এর আগে দুই তিন বার গিয়েছিলাম তাও ট্রেনে - ট্রেন থেকে নেমে দিনের আলোতে পায়ে হেটে পনের বিশ মিনিট হেটে আমাদের গ্রামের বাড়িতে পৌছে যেতাম - কোনো দিন এত ক্ষণ হাটি নাই- কঠিন আধার- চতুর্দিকে ঝি ঝি পোকার ডাক - পাখির কিচির মিচির, মৃদু হাওয়াতে বাস বাগানের বাস গুলো কড় কড় শব্দ করে উঠে - এক ভয়ার্ত উনুভুতি - তার উপর আরো এক ভয় সামনের দিক থেকে না আবার পাঞ্জাবিরা চলে আসে আমাদের হাতে নাতে ধরে ফেলে - গায়ের লোম শিউরে শিউরে উঠছে বার বার - দূর কবর স্থান এ শিয়াল ডাকছে - সবাই  কে জানিয়ে দিচ্ছে আমাদের আগমন বার্তা।

মা বললেন ''যায়  যদি যাক প্রাণ তবু দিবনা দিবনা দিবনা গলার ধান''- একটা বাড়ির পাশে বিচুলির বিশাল স্তম্ভো  দেখে হঠাত বললেন।  

গ্রাম শেষ ইতিমধ্যে - আবার এক বিশাল অন্ধকার রাত পার হতে হবে এক বিল - অপর থেকে অপার তার ওপারেই আমাদের আজকের মঞ্জিল??!!! রাত্রি যাপন করার জায়গা- অনিতিদুর বিলের ওই পারে মাঝে মাজে ঝি ঝি পোকার মত আলো  দেখি আবার দেখি না।  উচু নিচু পথ নাই - ফসলের জমির আইল উপর দিয়ে হাটা - মাঝে মাঝে ছোট্ট জলাশয় - অন্ধকারে হঠাত আবিষ্কার করা - অতি সাবধানে পার হওয়া- ছোট ভাইদের ভাইজান কোলে  নিয়ে পার করলো শাহিনের  কপালে জুটল না ওই আবদার।  
অবশেষে প্রায় দের ঘন্টা হাতার পর শেষ হল সেই বিল - হাজির হলো  মান্দারপুড়ে  ---- জীবনের এক নতুন অধ্যায়ের প্রথম পর্বের প্রথম অঙ্ক এখানেই শুরু।........  চলবে। .....
Post a Comment