21 February 2015

OUT OF BOUND : নিষিদ্ধ যাতায়াত

এপিসোড -৬ 
২১-২-১৫

আউট অফ বাউন্ড : নিষিদ্ধ যাতায়াত 

শহর  ছেড়ে গ্রাম ছাড়া ঐ রাঙামাটির মেঠ পথে - আসলেই সবই সেদিন হারিয়ে গিয়েছিল - একদা প্রশ্ন জাগে - রবি ঠাকুর কেমনে জানতে পেরেছিল একদিন ওই মেঠ পথে সব কিছুই হারিয়ে যাবে। 

পাঘাচং থেকে পায়ে হেটে রেইল লাইন পারি দিয়ে হাটা  সুরু গ্রাম বাংলার অপরূপ রূপের ধুলো গুলো উড়িয়ে - মধ্য বসন্ত - হালকা হালকা কুয়াশা - সুরজো উঠেছে কিন্তু প্রকট নয় - মৃদু মন্দ হওয়া - নিক্ষিপ্ত বিস্তৃত মানুষের চলাফেরা - অনেক চিন্তা করে সিধান্ত হলো  মান্দারপুর নামক এক গ্রামে যেতে হবে - আখাউড়া- কসবা - ব্রাহ্মন বাড়িয়া ও শহর থেকে দুরে বহুদূরে যেখানে কেই চিনবে না।  নিরাপদ আশ্রয় - পথ তো আর ফুরায় না।  

গ্রাম বাংলা - জেগে উঠেছিল সেই দিন - পথিমধ্যে ক্লান্ত পথিকদের পানি দেয়ার জন্য দাড়িয়ে ছিল মেয়েরা - বৃদ্ধ আবাল বনিতা সবার মুখে সেই অমোঘ আওয়াজ - "" জয় বাংলা"" উত্তরে  ক্লান্ততা পূর্ণ  প্রতিউত্তর "জয় বাংলা". সাথে এক পশলা  - এক ফালি হাসি - 

১৯৭১ সাল - বাঙালি জাতির ৪৫০০ বছরের ইতিহাসের এক মহান সাল- এই প্রথম বার বাঙালি জাতি - সমষ্টিগত ভাবে জেগে উঠেছিল স্বাধিকার আদায়ের লড়াইয়ে - এই লড়াই - আমাদের মুক্তির সংগ্রাম , এবাবের সংগ্রাম আমাদের সাধীনতার সংগ্রাম-আর এই স্বপ্নের রূপকার - এই স্বপ্নের আর্কিটেক্ট - এই মুক্তির বীজ বপনকারী - এক মহান বাক্তি যার উনুপ্রেরনায় উনুপ্রানিত হয়েছিল সেই দিন সারে সাত কোটি বাঙালি - সেই আমাদের প্রাণ প্রিয় নেতা '' বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।  

১২০৪ সাল থেকে ১৯৭১ সাল এবং তারও আগে অনেক আগ থেকেই এই গঙ্গা ডেল্টা এবং এর আদিবাসীরা কোনো কোনো ভাবে শাসিত হয়ে আসছিল ভিনদেশী শাসক গোষ্টি দ্বারা। 

বঙ্গবন্ধু আমাদেরকে প্রথম দেখালেন সেই স্বাধীনতার সোপান।  তার সেই ব্যারিটন আওয়াজ - আবেগময় - আদেশ - উপদেশ  সেদিন পাথেয় হয়েছিল সমগ্র বাঙালি জাতির একমাত্র মঞ্জিল। 

গ্রামে গ্রামে মাইকে তখনও বাজছিল তার সেই ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণ - "এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম আমাদের স্বাধীনতার সংগ্রাম। ........"

পৃথিবীতে অনেক নেতা এসেছেন ও আসবেন কিন্তু 
...শোন মুজিবরের থেকে লক্ষ্য মুজিবরের কন্ঠ। ..............আকাশে বাতাসে উঠে রনি। ....

সেদিনের সেই কষ্ঠ, সেই ভীতি, সেই আরাম আয়েস থেকে নির্বাসন - মৃতুর মুখোমুখি জীবন।  সব কে মনে হয়েছিল তুচ্ছ -  আবার আসবো ফিরে সেই বাংলার তীরে 
মুক্ত স্বাধীন বাংলায় মায়া মমতায় ঘিরে 
এই প্রত্যাশায় ক্লান্ত শাহীন গুটি গুটি পায়ে - অজানা এক জীবনের উদ্দেশে হাটতে থাকলো- ক্ষুধা ও ক্লান্তি বোঝা কাধে নিয়ে। 


Post a Comment